ফ্রিল্যান্সিং কি ? কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো 2022

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো ? আপনার মনে যদি এরকম প্রশ্ন থাকে, তাহলে এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য। এই আর্টিকেলে আমি ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার পদক্ষেপ গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। 

ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার জন্য আপনার কি কি করা উচিত ইত্যাদি সম্পর্কে আমি আর্টিকেল বিস্তারিতভাবে আলোচনা করার চেষ্টা করব। আপনি এই আর্টিকেলটি বিস্তারিত পড়ুন। অর্থাৎ ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য আপনার কি কি করা উচিত এই আর্টিকেল আপনি তা বিস্তারিত ব্যাখ্যা পাবেন। 

আমি একজন প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সার। আমি ফাইবার এবং আপওয়ার্ক মার্কেটপ্লেসে কাজ করে থাকি। আমার 3 বছরের অভিজ্ঞতার আলোকে আমি এই কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ আমার অভিজ্ঞতা থেকে তুলে ধরবো।

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো 2022

ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে মুক্ত পেশা। ইন্টারনেট ব্যবহার করেন অথচ ফ্রিল্যান্সিং নাম শোনেনি এবং ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে জানেন না এরকম লোক খুঁজে পাওয়া খুবই কঠিন  কারণ বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং খুব জনপ্রিয় একটি পেশা হয়ে দাঁড়িয়েছে

ফ্রিল্যান্সিং নাম না শুনে থাকলেও আপনারা আউটসোসিং শব্দটির সাথে অবশ্যই পরিচিত। অনেকে ফ্রিল্যান্সিং কে আউটসোর্সিং নামে ডেকে থাকে

ফ্রিল্যান্সিং করে প্রতিমাসে 30 হাজার টাকা থেকে 1 লক্ষ টাকা ইনকাম  করা সম্ভব। এর জন্য আপনাকে ফিল আছে সম্পর্কে জানতে এবং ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলো ভালোভাবে শিখতে হবে। 

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো ?

ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার জন্য আমি সম্পূর্ণ ফ্রিল্যান্সিং প্রচেষ্টাকে পাঁচটি স্টেপে ভাগ করেছি। ফ্রিল্যান্সিং কাজ শেখা থেকে শুরু করে কাজ করা পর্যন্ত আপনার কয়েকটি পদক্ষেপ এর মধ্য দিয়ে যেতে হবে। নিচে তা বিস্তারিত উল্লেখ করা হলো:

  1.  কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট কানেকশন
  2.  ফ্রিল্যান্সিং এর যেকোনো একটি কাজ শেখা
  3.  ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে ভালোভাবে জানা
  4.  মার্কেটপ্লেসে কাজ করা
  5.  ইংরেজি সম্পর্কে একটু ধারণা থাকা

কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট কানেকশন:

ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্য অবশ্যই আপনার একটি কম্পিউটার, ফোন অথবা ইন্টারনেট কানেকশন এগুলো থাকতেই হবে। যেহেতু ফ্রিল্যান্সিং কাজ করতে হলে আপনার ইন্টারনেটের মাধ্যমে কাজ করতে হবে  সুতরাং কাজ করার জন্য অবশ্যই ইন্টারনেট এবং কাজ করার জন্য  ডেক্সটপ, ল্যাপটপ অথবা ইস্মার্ট ফোন ব্যবহার করতে হবে।

এখন অনেকেই বলতে পারেন আমি কোন কম্পিউটার কিনবো? আমি কেমন কম্পিউটার কিনব ইত্যাদি। কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ দামি বা কমদামি নির্ভর করে আপনি কোন ধরনের কাজ করবেন তার ওপর। আপনার যদি কম্পিউটার কেনা নিয়ে কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে নিচের আর্টিকেলগুলো পড়ুন: কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো

ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য কোন ল্যাপটপ ভালো ? বিস্তারিত জানুন

ল্যাপটপ নাকি ডেক্সটপ, কোনটি কিনবেন? ডিজিটাল মার্কেটিং এর জন্য ল্যাপটপ

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো এছাড়াও আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেল:

ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্য কিসের প্রয়োজন ?

ফ্রিল্যান্সিং এর যেকোনো একটি কাজ শেখা:

অনলাইনে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় গুলোর মধ্যে ফ্রিল্যান্সিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ।ফ্রিল্যান্সিং করে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে হলে আপনাকে অবশ্যই ফ্রিল্যান্সিং এর যেকোনো একটি কাজ শিখতে হবে। 

আপনার দেখতে হবে বর্তমানে কোন কাজের চাহিদা বেশি এবং কোন কাজ আপনার জন্য এবং আপনার কোন কাজটি করতে ভালো লাগে সেই অনুযায়ী একটি কাজ শিখুন। কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে জানা:-

ফ্রিল্যান্সিং কাজ  করে ইনকাম করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে হবে। সুতরাং আপনি যদি সেই  ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে যথেষ্ট না জানেন তাহলে আপনি সেই মার্কেটপ্লেসে কাজ পাবেন না।

কাজ পেতে হলে অবশ্যই আপনাকে মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে হবে। অর্থাৎ মার্কেটপ্লেসে কিভাবে সহজে কাজ পাওয়া যাবে! কিভাবে  আপনার প্রোফাইল উপস্থাপন করতে হবে? ইত্যাদি সম্পর্কে আপনার যথেষ্ট জ্ঞান থাকতে হবে।

ফ্রিল্যান্সিং  শেখার পর আপনার পরবর্তী কাজ হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে জানা এবং আপনার কাছে যে মার্কেট বেশি ভালো মনে হবে সেই মার্কেটপ্লেস গুলোতে অ্যাকাউন্ট তৈরি করা।

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে বিস্তারিত জ্ঞান লাভের জন্য নিচের আর্টিকেল দুটি ভালোভাবে পড়তে পারেন:

ফ্রিল্যান্সিং কাজ শেখার পর কোন মার্কেটপ্লেস দিয়ে কাজ শুরু করবেন?

Fiverr vs Upwork- কোন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস সেরা ?.

মার্কেটপ্লেসে কাজ করা:-

কাজ শেখার পর আপনি এখন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে আইডিয়া নেওয়ার চেষ্টা করবেন এবং আপনার পছন্দ অনুযায়ী ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে একাউন্ট করবেন। 

আপনি যে কাজগুলো শিখেছেন সে কাজগুলো উপর আপনার ফ্রিল্যান্সিং একাউন্ট তৈরি করার পড়ে আপনি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে একটিভ থাকবেন। সবকিছু যদি ঠিক থাকে তাহলে অবশ্যই আপনি খুব তাড়াতাড়ি কাজ পেয়ে যাবেন

ইংরেজি সম্পর্কে একটু ধারণা থাকা:-

যেহেতু ফ্রিল্যান্সিং কাজের জন্য আপনার  ক্লায়েন্ট গুলো সব সময় ইউরোপ-আমেরিকা অথবা বিভিন্ন দেশের হয়ে থাকবে। সুতরাং তাদের সাথে কথা বলার জন্য অবশ্যই আপনাকে ইন্টারন্যাশনাল ভাষা অর্থাৎ ইংরেজি ভাষা ব্যবহার করতে হবে।

অনেকেই আছে ইংরেজি ভাষা ভালোভাবে বুঝে নেবেন ইংরেজি ভাষাতে কথা বলতে বা লিখতে পারেনা। এখানে চিন্তার কোন কারণ নেই। ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্য অবশ্যই ইংরেজি গুরুত্বপূর্ণ। তবে আপনি যদি ইংরেজি না পারেন, তবুও আপনি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে পারবেন।

আপনি যদি ভাল ইংরেজি না পারেন, তাহলে আপনি গুগল ট্রান্সলেট এর সাহায্যে আপনার ক্লায়েন্টের মেসেজগুলো বুঝতে এবং আপনার ক্লায়েন্টের কাছে মেসেজ পাঠানোর জন্য মেসেজ তৈরি করতে পারবেন।আপনি যদি এটি ব্যবহার করতে না পারেন তাহলে নিচের ভিডিওটি দেখুন

ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে শেষ কথা

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো এই আর্টিকেলটি যদি আপনি মনোযোগ সহকারে সম্পন্ন করে থাকেন, তাহলে অবশ্যই বুঝে গেছেন আমি এই আর্টিকেলে ফ্রিল্যান্সিং এর পদক্ষেপ গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করেছি।  

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শুরু করব এবং ফ্রিল্যান্সিংয়ের জন্য কোন ল্যাপটপ ব্যবহার করব?  কোন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস ভালো? এরকম যদি আপনাদের কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে আশা করি বুঝে গেছেন। এই আর্টিকেলে আমি এই প্রশ্নগুলোর উত্তর ভালোভাবে দিয়ে দিয়েছি।

ওয়েব শরিফুল সাইট থেকে ফ্রিল্যান্সিং, অনলাইনে ইনকাম, ব্লগ, প্রযুক্তি, টিপস এন্ড ট্রিকস, সফটওয়্যার ইত্যাদি সম্পর্কে রেগুলার আর্টিকেল প্রকাশ করা হয়। রেগুলার এরকম টিপস এবং ট্রিক্স পেতে এই সাইটের সাথেই থাকুন।

ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে আপনার যদি কোন প্রশ্ন অথবা কোনো পরামর্শ থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাতে পারেন আমি সমস্ত কমেন্টের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব।

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ মনোযোগ সহকারে পড়ার জন্য আপনাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

Leave a Comment