নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং – ফ্রিল্যান্সিং শিখুন অনলাইনে সম্পূর্ণ ফ্রী

এই আর্টিকেলে নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে আইডিয়া যাওয়ার চেষ্টা করব।আশা করি এখানে প্রায় 80 পার্সেন্ট নতুন যারা ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চাচ্ছেন তারা এই আর্টিকেলটি পড়তেছেন। তাদের উদ্দেশ্যে আমার ট্রিট হচ্ছে আপনার কিভাবে দ্রুত সফল হতে পারেন?

নতুনরা ফ্রিল্যান্সিংয়ের কোন কাজ শিখবেন, কিভাবে দ্রুত সফল হবেন ইত্যাদি সকল বিষয়েই আর্টিকেলে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হয়েছে। আমি আমার ফ্রিল্যান্সিংয়ের তিন বছরের অভিজ্ঞতার আলোকে আর্টিকেলটি সাজিয়েছি।

আমি এই আর্টিকেলের নাম দিয়েছি নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং। সুতরাং নতুনরা কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে সফল হতে পারবে, এই আর্টিকেলের বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হবে। তো চলেন বিস্তারিত আলোচনা করা যাক।

ফ্রিল্যান্সিং কি

ইন্টারনেট ব্যবহার করে অথচ ফ্রিল্যান্সিং নাম শুনে নাই এরকম মানুষ খুঁজে পাওয়া খুবই কঠিন। অনেকে ফ্রিল্যান্সিংকে আউটসোর্সিং নামে ডেকে থাকে।

ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে মুক্তপেশা আমরা সকলেই তা জানি। অর্থাৎ কার অধীনে কাজ না করে মুক্তভাবে কাজ করাকেই  ফ্রিল্যান্সিং বলা হয়। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং বলতে যেহেতু আমরা অনলাইনে কাজকেই বুঝে থাকি, তাই নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং একটি ভালো ক্যারিয়ার।

ধরেন আপনি একজন গ্রাফিক ডিজাইনার। কোন কোম্পানিতে গ্রাফিক ডিজাইনার হিসেবে যুক্ত না হয়ে, সরাসরি ক্লায়েন্টের সাথে  কাজ কাজ করাই হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং।

ফ্রিল্যান্সিং কত প্রকার বা ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ

ফ্রিল্যান্সিং কাজের কোন নির্দিষ্ট প্রকারভেদ নেই। অফলাইন এবং অনলাইন আপনি দুইভাবে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং কাজে কোন প্রকার না থাকলেও ফ্রিল্যান্সিং কাজের কিছু ক্যাটাগরি রয়েছে। ফ্রিল্যান্সিং কাজে এ ধরনের ক্যাটাগরির যুক্ত রয়েছে, নিচে উল্লেখ করা হলো। 

  • Graphics & Design
  • Digital Marketing
  • Writing & Translation
  • Video & Animation
  • Music & Audio
  • Programming & Tech
  • Business
  • Lifestyle
  • Trending

উপরে উল্লেখিত ক্যাটাগরিতে ফ্রিল্যান্সিং এর সব কাজ অন্তর্ভুক্ত। যারা এখনো ফ্রিল্যান্সিং শুরু করেননি যারা ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে চাচ্ছেন তারা বিনা দ্বিধায় ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার হিসেবে বেছে নিতে পারেন। নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং এটি খুবই ভালো ক্যারিয়ার।

ফ্রিল্যান্সিং এর ভবিষ্যৎ কি

ফ্রিল্যান্সিং এর ভবিষ্যত উজ্জ্বল। যদি আপনি সঠিকভাবে ভালো একটি ক্যাটাগরিতে কাজ শিখতে পারেন, তাহলে আপনার অন্য কোন কাজের কথা চিন্তাও করতে হবে না।

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং শেখা খুবই ভাল একটি ডিসিশন হবে। তবে অবশ্যই এর জন্য আপনাকে ভালো একটি ক্যাটাগরিতে কাজ শিখতে হবে। যাতে আপনি খুব দ্রুত এবং সহজে সফল হতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং এ ভালো ক্যাটাগরিতে কাজ শেখা বলতে, যে ক্যাটাগরির ভবিষ্যৎ ভালো রয়েছে। যেমন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট, সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট ইত্যাদি এই স্কিলগুলিতে কাজ শিখলে আপনি খুবই ভালো কিছু করতে পারবেন।

সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ ক্যাটাগরি হচ্ছে এনিমেশন এন্ড ভিডিও এডিটিং। যদি এই ক্যাটাগরিতে আপনার একটি ভালো দক্ষতা থাকে, তাহলে আপনি ফ্রিল্যান্সিং এর পাশাপাশি প্যাসিভ ইনকামও জেনারেট করতে পারেন।

আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে চান, তাহলে আপনার জন্য

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার এর ভবিষ্যৎ , ফ্রিল্যান্সিং ভবিষ্যৎ 2022

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং
নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং

হ্যাঁ, নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং। মোটকথা নতুন-পুরাতন সকলের জন্য ফ্রিল্যান্সিং। যদি আপনি ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে বেশি ধারণা না রাখেন, তাহলে আপনার জন্যও ফ্রিল্যান্সিং। সবার জন্য ফ্রিল্যান্সিং একটি উত্তম পেশা।

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং, এ কথাটি আমি অবশ্যই অনেক আগেই বলে দিয়েছি। তবে আপনি এখন চিন্তা করতেছেন আপনি কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন? যেহেতু আপনি ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে কিছুই জানেন না?

আপনারা যারা নতুন আছেন, তারা যেন এই আর্টিকেলটি পড়ে উপকৃত হতে পারেন। তাই এখানে নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং বিস্তারিতভাবে বলা আছে।

ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে আপনি যদি একেবারেই নতুন হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার জন্য নিচের আর্টিকেলটি।

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো (সাকসেসফুল ফ্রিল্যান্সার হওয়ার জন্য 9টি ধাপ)

ফ্রিল্যান্সিং এর কোন কাজটি দ্রুত শেখা যায় ?

ফ্রিল্যান্সিং এর সব কাজেই আপনার ভালো করে শিখতে হলে সময় লাগবে। ফ্রিল্যান্সিং এর কোন কাজ সহজ নয়। তবে অ্যাপডেভেলপমেন্ট, এনিমেশন ইত্যাদি ক্যাটাগরিকে আমি ডিজিটাল মার্কেটিং এর সাথে তুলনা করবো না।

যেমন অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট শিখতে হলে আপনাকে অবশ্যই প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ শিখতে হবে। অনেকের কাছেই প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ অনেক কঠিন, তবে অনেকের কাছেই সহজ। কিন্তু আমি নিজেও অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কঠিন মনে করি।

কিন্তু ডিজিটাল মার্কেটিং আমার কাছে অনেক সহজ। কারণ এখানে আমাকে কোন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ শিখতে হয় না। আমাকে শুধু ডিজিটাল মার্কেটিং এর কৌশলগুলো আয়ত্ত করতে হয়।

এবং সব বিষয় বিবেচনা করে আমি বলতে পারি শুধুমাত্র ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যাটাগরি ফ্রিল্যান্সিং খুব দ্রুত এবং সহজে শেখা সম্ভব। আপনি কি মনে করেন?

ফ্রিল্যান্সিং এ কোন কাজ শিখলে বেশি টাকা পাওয়া যায়?

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারের বেতন নির্ধারণ হয় আপনার কোয়ালিটির উপর। যেমন: একজন ওয়েব ডিজাইনার একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে 100 ডলার পারিশ্রমিক চাই, আবার অন্য একটি ডিজাইনার একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে 10000 ডলার পারিশ্রমিক চাই। আপনি কি জানেন এরকম হওয়ার কারণ কি?

আপনি যদি না জানেন, তাহলে আমি বলে দিই। প্রথম ডেভলপার হচ্ছে তিনি নতুন এবং তার যথেষ্ট ভাল স্কিল নাই ডেভেলপমেন্ট করতে। এবং তার অভিজ্ঞতাও খুবই কম, তাই সে অল্প টাকায় ওয়েব ডিজাইন করে দিতে রাজি।

কিন্তু এক্সপার্ট ওয়েব ডিজাইনের বেশি টাকা চাওয়ার কারণ হচ্ছে, তার যথেষ্ট ভাল অভিজ্ঞতা বা এক্সপিরিয়েন্স আছে। যদি তার কাজ দেওয়া হয়, তাহলে সে খুবই ভালো কোডিং এর মাধ্যমে কাজ করে দেবে। 

সুতরাং এখানে বুঝতেই পারছেন ফ্রিল্যান্সিংয়ে যে বেশি অভিজ্ঞ সে বেশি ইনকাম করবে এবং যে নতুন, সে কম ইনকাম করবে। 

কিন্তু এছাড়াও এখানে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় রয়েছে, যে ক্যাটাগরিতে প্রতিদ্বন্দ্বীর সংখ্যা খুবই কম, সে ক্যাটাগরিতে আপনি যদি কাজ শিখে থাকেন, তাহলে আপনি অনেক বেশি ইনকাম করতে পারবেন।

উদাহরণস্বরূপ একটি সহজ কাজে ফ্রিল্যান্সারের সংখ্যা খুবই বেশি। কিন্তু একটি কঠিন কাজ এ ফ্রিল্যান্সারের সংখ্যা খুবই কম। সুতরাং আপনি যদি বেশি ইনকাম করতে চান, তাহলে আপনাকে অবশ্যই কোন কঠিন ক্যাটাগরিতে কাজ শিখতে হবে।

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ?

হ্যাঁ, অবশ্যই নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং। প্রযুক্তি উন্নত হওয়ার পাশাপাশি সমস্ত কিছু এখন অনলাইনে ভিত্তিক হয়ে যাচ্ছে। ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ার জন্য ফ্রিল্যান্সিং খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

সুতরাং আপনি যদি নতুন হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি পেরিয়ার চেপে ফ্রীলাঞ্চিং বেছে নিতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং এ দ্রুত সফল হতে করণীয় কি ?

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং এই আর্টিকেল পড়ে, আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং এ দ্রুত সফল হতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই দুইটি টিপস ফলো করতে হবে। নিচের দুইটি টিপসঃ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো:

  • ভালো একটি ক্যাটাগরিতে কাজ শেখা
  • ভালো কমিউনিকেশন দক্ষতা

ভালো একটি ক্যাটাগরিতে কাজ শেখা : আপনি যদি খুব দ্রুত ফ্রিল্যান্সিংয়ে সফল হতে চান, তাহলে আপনি যে ক্যাটাগরিতে ফ্রিল্যান্সারের সংখ্যা কিছুটা কম এবং সহজে কাজ শেখা যায় এরকম ক্যাটাগরি পছন্দ করে সেই ক্যাটাগরিতে আপনার কাজ শিখতে হবে।

ভালো কমিউনিকেশন দক্ষতা: আপনি খুবই ভালো কাজ পারেন, কিন্তু আপনি ক্লায়েন্টের সাথে ভালোভাবে কমিউনিকেশন করতে পারেন না। তাহলে অবশ্যই আপনি কাজ পাবেন না। সুতরাং ভাল কাজ শিখার পাশাপাশি ভালো কমিউনিকেশন করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি স্কিল।

আমি অলরেডি উপরে দুইটি টিপস শেয়ার করে ফেলেছি। এখন অনেকেই বলতে পারেন ভাল কমিউনিকেশন দক্ষতা বলতে আপনি কি বুঝিয়েছেন?

ভালো কমিউনিকেশন দক্ষতা বলতে আমি বুঝিয়েছি ক্লায়েন্ট যা  চাই, সেই অনুযায়ী রিপ্লাই দেন এবং ক্লায়েন্টকে অবশ্যই আত্মবিশ্বাস দিবেন যে আপনি খুবই ভালভাবে তার কাজটি করতে পারবেন।

অনেকে বলতে পারেন আমি তো ভালো ইংরেজি বলতে পারি না, তাহলে কিভাবে ভালো কমিনিকেশন করব?

যেহেতু ফ্রিল্যান্সিং এ আপনার সমস্ত ক্লাইন বিভিন্ন দেশের হয়ে থাকে, সুতরাং আপনাকে অবশ্যই তাদের সাথে ইংরেজিতে কথা বলতে হবে। তবে ভালো কমিউনিকেশনের জন্য অবশ্যই ইংরেজি গুরুত্বপূর্ণ নয়।

আপনি মার্কেটপ্লেসে এরকম অনেক ফ্রিল্যান্সার পাবেন, যারা দেখবেন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে টপ রেটেড ফ্রিল্যান্সার। তবে তাদের ইংরেজি ততটা ভালো নয়।

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং এ আর্টিকেলটিতে এসে আপনারা যারা ইংরেজি নিয়ে টেনশনে আছেন, তাদের জন্য অবশ্যই সুখবর। গুগল ট্রান্সলেটর মত টুলস ইউজ করে আপনি খুব সহজেই ক্লায়েন্টের সাথে কমিউনিকেশন করতে পারবেন।

তবে আমি অবশ্যই পরামর্শ দিব আপনারা ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে চাইলে, অবশ্যই ইংরেজি শিখতে থাকবেন। কারণ যখন আপনার ভাল অভিজ্ঞতা হবে তখন আপনাকে অবশ্যই ক্লায়েন্টের সাথে সরাসরি কথা বলতে হতে পারে।

কারণ যখন আপনি ভালো স্কিল ডেভেলপ করতে পারবেন, তখন আপনার অনেক ভালো ভালো পার্মানেন্ট জবের অফার আসবে।

গুগল ট্রান্সলেট ব্যবহার করে ক্লায়েন্টদের সাথে কথা বলার জন্য নিচের ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন

ফ্রিল্যান্সিং এর জন্যে ডেক্সটপ বা ল্যাপটপ কোনটা নিব ?

যারা নতুন ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চাই, তাদের ফ্রিল্যান্সিং কাজ শেখার আগেই একটি কমন প্রশ্ন  ফ্রিল্যান্সিংয়ের জন্য ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ কোনটি নিলে ভালো হয় ?

ফ্রিল্যান্সিং কাজের জন্য  ডেস্কটপ অথবা ল্যাপটপ যে কোন একটা নিলেই হবে। তবে আপনার কাজের উপর ভিত্তি করে ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ পছন্দ করা উচিত। যেমন আপনি যদি এনিমেশন, গ্রাফিক ডিজাইন, ভিডিও এডিটিং ইত্যাদি রিলেটেড স্কিল নিয়ে কাজ শিখতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনার হাই কোয়ালিটি ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ নিতে হবে।

আর আপনি যদি ডিজিটাল মার্কেটিং, এসইও ইত্যাদি রিলেটেড স্কিলে শিখতে চান, তাহলে কম দামি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ চলবে। সুতরাং আপনি কোন স্কিলের উপর কাজ শিখবেন, তার ওপর ভিত্তি করে আপনি ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ পছন্দ করেন।

আপনি যদি এখন আপনার পছন্দ অনুযায়ী ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ এর সিদ্ধান্ত না নিতে পারেন, তাহলে নিচের আর্টিকেলটি অবশ্যই পড়েন। নিচের আর্টিকেলে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হয়েছে।

ল্যাপটপ নাকি ডেক্সটপ, কোনটি কিনবেন?

ফ্রিতে ফ্রিল্যান্সিং কোথা থেকে শিখব?

ফ্রিতে ফ্রিল্যান্সিং কোথা থেকে শিখব এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রশ্ন। অর্থাৎ আমি ভেবে নিয়েছি যে আপনি একটি ক্যাটাগরির পছন্দ করেছেন, আপনার ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য। ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য আপনার অবশ্যই গুগোল এর ওপর নির্ভর করতে হবে, যদি আপনি ফ্রিতে শিখতে চান।

এছাড়াও বিভিন্ন ওয়েবসাইটের ফ্রী কোর্সগুলো আপনাকে খুঁজে বের করতে হবে। ফ্রিতে ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য সবচেয়ে প্রয়োজনীয় সাইটটি হল ইউটিউব। ইউটিউবে আপনি অনেক প্রিমিয়াম কোর্স ফ্রিতে পেয়ে যাবেন।

ফ্রিতে ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য অবশ্যই আপনাকে ভালোভাবে সার্চ করতে হবে, যে বিষয়ে আপনি শিখতে চান। ইউটিউবে বা গুগলে আপনি ভালোভাবে সার্চ দেন তাহলে অবশ্যই আপনার কাঙ্খিত টপিকের উপর কোর্স পেয়ে যাবেন।

ফ্রিল্যান্সিং এ কোন মার্কেটপ্লেসকে শুরু করব?

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং – এই আর্টিকেলটি যারা পড়তেছে, তারা অনেকেই জানেন না ফ্রিল্যান্সিং শেখার পর কোন মার্কেটপ্লেসকে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো?

ফ্রিল্যান্সিং কাজ শিখার পর অবশ্যই আপনার একটি ভালো ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস পছন্দ করা উচিত, যেখানে আপনি খুব দ্রুত এবং সহজে কাজ পাবেন। 

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং এ একটি মার্কেটপ্লেস ভালো হতে পারে। তবে আপনি যদি প্রফেশনাল হন, অবশ্যই আপনার ভালো একটি প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস পছন্দ করা উচিত।

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় তিনটি মার্কেটপ্লেস হচ্ছে fiverr.com, upwork.com, freelancer.com

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনি যদি বুঝতে না পারেন যে, নতুন অবস্থায় আপনার কোন মার্কেটপ্লেসে কাজ করা উচিত? তাহলে আপনার জন্য নিচের আর্টিকেলটি 

ফ্রিল্যান্সিং কাজ শেখার পর কোন মার্কেটপ্লেস দিয়ে কাজ শুরু করবেন?

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং শেষ কথা:

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং এ আর্টিকেলে আমি আপনাদেরকে নতুন অবস্থায় কিছু টিপস দেওয়ার চেষ্টা করেছি। যে টিপস গুলো ফলো করে নতুন যারা আছেন, তারা সহজেই ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারেন এবং ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে নিজের ক্যারিয়ার দাঁড় করাতে পারেন।

আমি একজন প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সার এবং আমি আপনার অভিজ্ঞতার আলোকে এই আর্টিকেলটি লিখেছি। যাতে যারা নতুন অবস্থায় ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চান, তারা উপকৃত হতে পারেন।

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ। এরকম রেগুলার ফ্রিল্যান্সিং, অনলাইনে ইনকাম ইত্যাদি সম্পর্কিত টিপস পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।

কোডটি পেতে অপেক্ষা করুন 60 সেকেন্ড

4 thoughts on “নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং – ফ্রিল্যান্সিং শিখুন অনলাইনে সম্পূর্ণ ফ্রী”

Leave a Comment