ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস

ফাইবার ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসকে পছন্দ না করার 6টি কারণ

ফাইবার বাংলাদেশ একটি খুবই জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস। ফাইবার ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস একটি ইসরাইলি কোম্পানি। বাংলাদেশে যারা ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবে অথবা করছে তারা সকলেই সর্বপ্রথম ফাইবার  ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস এ র নাম জানে এবং তারা প্রায়ই অনেকে মনে করে ফাইবার খুবই ভাল একটি   ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস। সবার পছন্দ করে একটি কারণ হল  নতুনরা খুব সহজেই কাজ পাই এবং খুবই অল্প স্কিল দিয়েও আপনি কাজ করতে পারবেন।

প্রতিটা জিনিসের ভালো এবং খারাপ দুইটি দিক থাকে। ফাইবার অনেক ভালো দিক রয়েছে। তবে এর কিছু খারাপ দিক রয়েছে। যেটা একজন এক্সপার্ট ফ্রিল্যান্সারের কাছে সত্যি  খারাপ। আমি এক্সপান্ড বলতেছি এর জন্যই, কারণ এক্সপার্টরা ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ কাজ করতে চাই না। আমার 3 বছরের ফ্রিল্যান্সিং অভিজ্ঞতা থেকে আপনাকে একটি ভালো পরামর্শ দেওয়ার চেষ্টা করব। তবে চলুন জেনে আসি ফাইবার মার্কেটপ্লেস এর কিছু খারাপ দিক সম্পর্কে।

1.ফাইবার  ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস অ্যাক্টিভ থাকার সমস্যা

বলতে গেলে ফাইবার একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট। যেখানে আপনি ক্লায়েন্টের রিকোয়ারমেন্ট অনুযায়ী আপনার সার্ভিসটা সেটআপ করে রেখে দিতে পারেন  এবং  আপনার সার্ভিস সেল করতে পারবেন। যেহেতু আপনি আপনার সার্ভিসগুলো ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ রেখে দিতে পারেন। তাই যেকোন ক্লায়েন্ট আপনার সার্ভিস গুলো দেখতে পারে। এবং সেই সার্ভিসটা সম্পর্কে আরও তথ্য অথবা ক্রয় করার জন্য আপনাকে মেসেজ করতে পারে। আর এটাই হচ্ছে বড় সমস্যা |

একজন ফ্রিল্যান্সারের পক্ষে কখনই 24 ঘন্টা একটিভ থাকা সম্ভব নয়| ক্লায়েন্ট আপনাকে যেকোন সময় মেসেজ করতে পারে। এবং সে সময় যদি আপনি অনলাইন না থাকেন, তাহলে আপনার রেসপন্স রেট কমে যাবে এবং আপনার প্রোফাইলে সমস্যা হতে পারে। যেহেতু আপনার মতো আরও অনেক ফ্রিল্যান্সার ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ রয়েছে। যদি আপনাকে ক্লায়েন্ট ঠিক সময় মেসেজ করে অনলাইনে না পায়। তাহলে সে অন্য কোনো ফ্রিল্যান্সারকে হায়ার করতে পারে।

আর ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ ক্লায়েন্টদের মেসেজ পাওয়ার কোনো নিদিষ্ট সময় নাই। কারণ বিভিন্ন দেশের টাইমজোন বিভিন্ন রকমের। ফাইবারে আপনাকে যেকোন সময় ক্লায়েন্ট মেসেজ করতে পারে। আমি আমার বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে বলতেছি। আমি এমন অনেক ক্লায়েন্টের ম্যাসেজ পেয়েছি রাত ২.০০ -৩.০০। আর কিছু ক্লায়েন্ট মেসেজ করেছে সকাল 7 টা থেকে 10 টা। এবং আরো অনেক ক্লায়েন্ট মেসেজ করেছে দুপুর ১.০০ থেকে ২.০০ এবং কিছু ক্লায়েন্ট মেসেজ করে সন্ধ্যা থেকে রাত 8 টা পর্যন্ত।

নতুন অবস্থায় কোন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস দিয়ে শুরু করবো, বিস্তারিত আর্টিকেল

2. ফাইবার  ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস অর্ডার  কনভার্ট রেট কমে গেলে কাজ না আসা

উপরে অ্যাক্টিভ থাকা সমস্যাটি আমরা খুব কষ্ট করে হলেও ঠিক করতে পারি। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে একটু ভুল হয়। সে একটু ভুলের জন্যই আমরা রেগুলার কাজ পাই না এবং পরবর্তীতে আমরা হতাশায় ভুগি। অনেকে হয়তো অর্ডার কনভার্ট রেট  কথাটি বুঝতে পারিনি। আগে আপনাকে অর্ডার কনভার্ট রেটটা বুঝায়।

ধরুন নতুন অবস্থায় আপনি ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ কাজ করা শুরু করেছেন। এবং নতুন অবস্থায় আপনি তিনটা ক্লায়েন্টের মেসেজ পাইলেন। ধরেন,

আমরা তিনটা ক্লায়েন্টকে 100 পয়েন্ট দিলাম| তাহলে প্রতিটা ক্লায়েন্ট 33.33 পয়েন্ট করে পাবে। যদি আপনি একটা ক্লায়েন্টকে কনভার্ট করেন, তাহলে আপনি ৩৩.৩৩ পয়েন্ট পাবেন। এটাকে আমরা পারসন হিসেবে গণনা করি। তাহলে আপনার কনভার্টের রেট হচ্ছে ৩৩.৩৩% | যদি আপনি তিনটা ক্লায়েন্টের কাজ নিতে পারেন। তাহলে আপনার অর্ডার কনভার্ট রেট 100%. আর যদি দুইটা ক্লায়েন্টকে কনভার্ট করেন তাহলে আপনার কনভার্ট রেট ৬৬.৬৬ শতাংশ।

যারা গণিতে ভালো হয়তো তারা বুঝে গেছেন। আমি হয়তো ভাল ভাবে উপস্থাপন করতে পারি নাই।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে কনভার্ট রেট এর উপর ভিত্তি করে কিভাবে ফাইবার ক্লায়েন্ট পাঠায়?

নতুন অবস্থায় ফাইবার মার্কেটপ্লেস যদি আপনার কাছে তিনটি ক্লায়েন্ট পাঠাই, সেখান থেকে যদি আপনি একটি ক্লায়েন্টের কাজ নেন। তাহলে ফাইবার মার্কেটপ্লেস অবশ্যই আপনার কাছে আরো ২টি  নতুন ক্লায়েন্ট পাঠাবে। যদি ২টি নিতে পারেন। তাহলে আরো 4 টি নতুন ক্লায়েন্ট পাঠাবে। যদি তিনটা কাজ নিতে পারেন। তাহলে আরও ছয়টি ক্লায়েন্ট আপনার কাছে পাঠাবে। 

আপনি হয়তো বুঝে গেছেন আমি কি বুঝাতে চাচ্ছি। অর্থাৎ ক্লায়েন্টের কনভার্ট রেট এর উপর ভিত্তি করে ফাইবার আপনার ওখানে ক্লায়েন্ট পাঠাবে। আপনার ওখানে ক্লায়েন্ট পাঠাবে বলতে আমি বুঝিয়েছি আপনার গিগ এ ফাইবার ক্লায়েন্ট পাঠাবে। যদি আপনি কনভার্ট রেট না বাড়াতে পারেন। তাহলে আপনি রেগুলার কাজ পাবেন না।

নতুন অবস্থায় কোন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস দিয়ে শুরু করবো, বিস্তারিত আর্টিকেল

3. ফাইবার  ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস কম রেটে কাজ

ফাইবার মার্কেটপ্লেস কে আমি ফকিন্নি মার্কেটপ্লেস বলি। ফাইবার লাভাররা হয়তো রেগে গেছে | cool

ফকিন্নি মার্কেটপ্লেস বলার একটাই কারণ আমি এখানে প্রায় 80% ফকিন্নি ক্লায়েন্ট পেয়েছি। গরিব ক্লায়েন্ট গুলো ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ নিয়োগ করে| এখানে বড় বড় এজেন্সি নিয়োগ এর সংখ্যা খুবই কম। আপনি যদি একজন ক্লায়েন্ট হন, তাহলে খুবই অল্প দামে ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ অনেক বেশি এবং বড় সার্ভিস পাবেন। তবে অন্যান্য মার্কেটপ্লেসের ক্ষেত্রে এমনটা ঘটে না। একজন প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সার এ ক্ষেত্রে আরেকটি সমস্যা।

4. ফাইবার  ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস রেগুলার কাজ না পাওয়া

ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ এটি একটি কমন সমস্যা। অনেক ফ্রিল্যান্সার এ সমস্যাটি সম্মুখীন হয় এবং আমিও এই সমস্যাটি সম্মুখীন হয়েছি। এক মাসে দেখবেন আপনি প্রায়ই 2০০০ডলার  ইনকাম করে ফেলেছেন। হঠাৎ করে আর আপনার কোন কাজ নাই। এবং তিন মাসে মেসেজ আসেনা। এবং আমি এই সমস্যাটির মুখোমুখি হয়েছিলাম। এরপর থেকেই আমি ফাইবার মার্কেটপ্লেস কে পছন্দ করিনা। যেহেতু এখানে আপনার সার্ভিসগুলো ক্লায়েন্টরা খুঁজে আপনাকে অর্ডার করে। তাই রেগুলার কাজ না পাওয়ার সম্ভাবনা এখানে খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার।

5. ফাইবার  ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস একাউন্ট সাসপেন্ড সমস্যা

এ সমস্যাটি খুবই মর্মান্তিক সমস্যা। ধরেন আপনি  দুই বছর কাজ করে 1000 প্লাস রিভিউ পেয়েছেন। এবং 2000 + কাজ করেছেন। হঠাৎ করে দেখলেন আপনার একাউন্ট সাসপেন্ড হয়ে গেছে। (আপনার অনুভূতিটা কমেন্টে প্রকাশ করুন প্লিজ) আমি ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ তিনবার এই অনুভূতির স্বাদ গ্রহণ করেছি। 

ফাইবার ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস এ  সাধারণত ক্লায়েন্টদেরকে বেশি গুরুত্ব দেয় এবং তারা ফ্রিল্যান্সারদেরকে বেশি গুরুত্ব দেয় না। আপনি যখন হাজার ক্লায়েন্টের সাথে কাজ করবেন। তখন একটা অথবা দুইটা ক্লায়েন্টের সাথে আপনার বাজে কিছু অভিজ্ঞতা হবে। একানেই হচ্ছে বড় সমস্যা। যদি কোন ক্লায়েন্ট আপনার জন্য রিপোর্ট করে তাহলে আপনার একাউন্ট সাসপেন্ড। সাসপেন্ড হওয়ার পর, মেসেজ করল আপনার একাউন্ট ঠিক করতে চায় না। ফাইবার যদি আপনার একাউন্ট সাসপেন্ড হয়, 9৫% আপনার অ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে দেয় না।

অন্যান্য  ফ্রীল্যান্সিং  এমার্কেটপ্লেস অর্থাৎ আপওয়ার্ক গুরুত্বপূর্ণ ভুল ছাড়া কখনই আপনার একাউন্ট সাসপেন্ড করবে না। আর যদি তারা একাউন্ট সাসপেন্ড করে এবং আপনি যদি আপনার পক্ষ থেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে পারেন। তাহলে অবশ্যই তারা তা পরবর্তীতে অ্যাকাউন্ট ফেরত দেয়।  আমার একাউন্টে এমন ঘটেছিল। 

আমি আমার  দুইবার সাসপেন্ড হয় upwork  ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস এ একাউন্ট ফিরিয়ে নিয়েছি।

6.ফাইবার  ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস সাপোর্ট সিস্টেম

ফাইবারের মার্কেটপ্লেস সাপোর্ট সিস্টেম খুবই বাজে। আপনি যদি কোনো সমস্যার জন্য তাদেরকে ম্যাসেজ করেন। তারা সেই সঠিক সমাধান টা তো দিতে চায় না, যদি আপনার একাউন্ট সাসপেন্ড হয়। আপনি তাদের সাথে কথা বলেন তারা কখনই আপনাকে সঠিক একটা পরামর্শ দেয় না। 

আমি কোন কোম্পানি সার্ভিস বা কোন পণ্য কেনার আগে অবশ্যই আমি তাদের সাপোর্ট সিস্টেম টা ভালোভাবে পরীক্ষা করে নেই। উদাহরণস্বরূপ আমি বারবার Namecheap থেকে ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনে থাকি।  কারণ আমার যে কোন সমস্যায় তাৎক্ষণিকভাবে লাইভ চ্যাট এ ঠিক করে নেই। এটা অন্যান্য হোস্টিং এর ক্ষেত্রে আমি এরকম ভালো সুযোগ সুবিধা পায়নি।

আপওয়ার্ক এর সাপোর্ট সিস্টেম টা ফাইবারে থেকে 100 গুণ বেশি ভালো|

নতুন অবস্থায় তাহলে কোন মার্কেটপ্লেসকে শুরু করব

ফাইবার  ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস এ হাজার ভুল থাকার পরও তাদের কিছু ভালো দিক রয়েছে। উদাহরণস্বরূপ নতুনদেরকে খুব তাড়াতাড়ি সাকসেস করা। এখানে অল্প স্কিল দিয়েও আপনি কাজ করতে পারবেন।তাই আমি পরামর্শ দিব আপনি নতুন অবস্থায় ফাইবার দিয়ে শুরু করেন। তবে ফাইবারের প্রতি আপনি 100% বিশ্বাস রাখবেন না। ফাইবারে কাজ করে আপনি ক্লায়েন্টদের এবং  কমিউনিকেশন অর্ডার কনভার্ট রেট ইত্যাদি এর উপর এক্সপিরিয়েন্স হবে। তাই আপনি যেকোন মার্কেটপ্লেসে পরবর্তীতে খুব সহজেই সাকসেস হতে পারবেন| আমি সেই মার্কেটপ্লেস হিসেবে আপওয়ার্কে বলবো। আমি মনে করি আপনার একটি সরকারি চাকরির মত। 

ভালোভাবে কাজ শিখুন, ফাইবার  ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস দিয়ে শুরু করুন, সবগুলোর ওপর এক্সপেরিয়েন্স অর্জন করুন, এবং তারপরে আপওয়ার্কে প্রবেশ করুন।

নতুন অবস্থায় কোন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস দিয়ে শুরু করবো, বিস্তারিত আর্টিকেল

3 thoughts on “ফাইবার ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসকে পছন্দ না করার 6টি কারণ”

  1. Pingback: নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস কাজ পাওয়ার টিপস - টিপস দাও

  2. Pingback: ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার এর ভবিষ্যৎ , ফ্রিল্যান্সিং ভবিষ্যৎ 2022 - websoriful

Leave a Comment

Your email address will not be published.